ইগনাইট ইয়ুথ ফাউন্ডেশন একটি অলাভজনক সংগঠন যা একটি যুবক দলের দ্বারা পরিচালিত হচ্ছে এবং কাজ করছে বাংলাদেশের দুঃস্থ ও গরীব শিশুদের উন্নয়নের জন্য। মুহাম্মদ জহিরুল ইসলাম, একজন বাংলাদেশি যুবক যার মাধ্যমে ২০১৬ সালের ২রা ফেব্রুয়ারী সংগঠনটি যাত্রা শুরু করে। আই ওয়াই এফ প্রধানত কাজ করছে শিশুদের মধ্যে নিরক্ষরতা এবং পুষ্টি হীনতা দূরীকরণের লক্ষ্যে এবং পারিবারিকভাবে একটি  সুন্দর ও সুষ্ঠু পরিবেশ গড়ে তোলার জন্য।আই ওয়াই এফ বর্তমানে গুরুত্ব সহকারে দীর্ঘমেয়াদী ও টেকসই প্রকল্পে কাজ করছে সে সকল শিশুদের জন্য যাদের পরিবারের অবস্থান আন্তর্জাতিক দারিদ্র সীমার নিচে( প্রতিদিনের আয়  ১.৯০ মার্কিন ডলারের কম)। আই ওয়াই এফ বিশ্বাস করে একটি সুন্দর সুষ্ঠু সমাজ গঠনে প্রত্যেকটি শিশুর মানসম্মত শিক্ষা গ্রহণের সুযোগ থাকা এবং যুবকদের মহান কাজে অংশগ্রহণ করাটা অত্যাবশ্যক। আই ওয়াই এফ এর রয়েছে চারটি অন্যতম প্রকল্প যাহা- শিক্ষা বিষয়ক কার্যক্রম, যুব উন্নয়ন কার্যক্রম, নারী ক্ষমতায়ন এবং ব্লাড ব্যাংক।

গত ২ ফেব্রুয়ারি প্রতিষ্ঠানটি এর ৩ বছর পূর্তি অনুষ্ঠান উদযাপন করে। এই ৩ বছরে তাদের অতিক্রম করতে হয়েছে নানা বাধা – বিপত্তি আর চড়াই – উৎরাই কিন্তু শত চড়াই – উৎরাই পেড়িয়ে সমাজ, দেশ ও মানুষের কল্যাণে অবদান রেখে প্রমাণ করেছে নিজেদের অদম্য ভূমিকা। মাত্র ৩৫জন ভলান্টিয়ার নিয়ে যাত্রা শুরু করেছিল এই ফাউন্ডেশনটি। বছর কয়েক গড়াতেই এখন ভলান্টিয়ারের সংখ্যা ছুঁয়েছে প্রায় ৯ হাজারেরও বেশি । রাজধানি ঢাকার পাশপাশি দেশের অন্যত্র সেবা, সহযোগিতা , নারী ও শিশুর স্বাস্থ্য ও মানুষিক বিকাশের লক্ষে সর্বমোট ৬ টি জেলায় বর্তামানে প্রতিষ্ঠাটি এর কার্যক্রম সফলভাবে পরিচালনা করছে । এছাড়া ২০ জন ক্যাম্পাস এম্বাসেডর ও ১১ জন সদস্য বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রতিনিয়ত অবদান রাখছে নিজেদের মেধার, দক্ষতার আর কঠোর পরিশ্রমের ।

ইগনাইট ইয়ুথ ফাউন্ডেশনের ৩ বছরপূর্তি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আনোয়ারা বেগম ( আইনজীবী , বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগ ), বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মোহাম্মদ নিজাম উদ্দিন (  সভাপতি আলফা ইয়োগা সোসাইটি), মুহাম্মদ জহিরুল ইসলাম( প্রতিষ্ঠাতা এবং সভাপতি ইগনাইট ইয়ুথ ফাউন্দেশন ) , সহ সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার মুহাম্মদ মইনুদ্দিন মিয়া এবং সকল টিম মেম্বারগণ। এসময় উপস্থিত বক্তারা দেশ ও জাতি গঠনে যুবকদের অবদান এবং সমাজ ও দেশের উন্নয়নের স্বার্থে যুবকদের এগিয়ে আসা এবং একত্রে হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান । তাঁরা বলেন , যুবকরাই আগামী দিনের ভবিষ্যৎ , তাদের উপর নির্ভর করছে আগামীর বাংলাদেশ কিন্তু যুবকরাই যদি অসৎ পথে পরিচালিত হয় , অন্যায়ের পথ বেছে নেয় , মাদকের সাথে নিজেদের সম্পৃক্ত করে তবে দেশ ও জাতির জন্য তা হবে হুমকিস্বরূপ । বিকেল ৩ ঘটিকায় ইগনাইট স্কুলে কেক কেটে অনুষ্ঠানের সূচনা হয় । এসময় ইগনাইট ইয়ুথ ফাউন্ডেশন স্কুলের ছাত্র- ছাত্রীদের হাতে বিনামূল্যে বই বিতারন করা হয় ।

পরিশেষে , পুরষ্কার বিতারনি পর্বে প্রধান অতিথি ভাল ফলাফলের জন্য ইগনাইট ইয়ুথ ফাউন্ডেশন স্কুলের  ৩ জন ছাত্র – ছাত্রীর হাতে পুরষ্কার তুলে দেন। এরা হল , তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্র মোহাম্মদ ইয়াসির , দ্বিতীয় শ্রেণীর ছাত্রী তানহা এবং প্রথম শ্রেণীর ছাত্র রিমন খান। এছাড়া এ বছরের টিম মেম্বার অফ দা ইয়ার পুরষ্কার পান “ফাহমিদা হোসেন তৃষা” এবং টিচার অফ দা ইয়ার পুরষ্কার পান “রাবেয়া খাতুন”।